প্রধানমন্ত্রীকে সেলিমের খোলা চিঠি (ক্যান্সারে আক্রান্ত)

ময়ী প্রধানমন্ত্রীর ক্যান্সারে আক্রান্ত কাউন্সিলর সেলিম খোলা চিঠি

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগ এর সাবেক সদস্য – চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলর রাজনীতির নিবেদিত প্রাণ জননেতা তারেক সোলেমান সেলিম ক্যান্সারে আক্রান্ত। বর্তমানে তিনি ডেল্টা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। ব্যয়বহুল এই চিকিৎসার ব্যয়ভার করা তাঁর পক্ষে সম্ভব নয়। ফলে টাকার অভাবে উন্নত চিকিৎসা করাতে পারছেন না বলে  জানিয়েছেন তিনি। 

চিকিৎসার ব্যয়ভার বহন করার আকুতি জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বরাবর খোলা চিঠি লিখেছেন আলকরণ ওয়ার্ড থেকে চারবার কাউন্সিলর পদে নির্বাচিত এই নেতা।

চিঠিতে তারেক সোলেমান সেলিম লিখেছেন,‘প্রাণপ্রিয় নেত্রী আপনি মাদার অব হিউম্যানিটি। আপনার মমতাময়ী মনের রূপ আজ সারা বিশ্বব্যাপী স্বীকৃত।‘বর্তমানে আমার এই কষ্টদায়ক পরিস্থিতিতে আপনার মমতাময়ী হাত সদয়ভাবে বাড়িয়ে দেবেন এটা আশা করতে পারি। আমার চিকিৎসা চালিয়ে নিতে আপনার সদয় আর্থিক সহযোগিতায় আমাকে বাধিত করবেন। ’

জানা গেছে, তারেক সোলেমান সেলিম বর্তমানে ঢাকার ডেল্টা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। দ্রুত তাকে সিঙ্গাপুর বা থাইল্যান্ডে নিয়ে উন্নত চিকিৎসা দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন হাসপাতালটির চিকিৎসকরা।

তারেক সোলেমান সেলিম স্কুল জীবনেই ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত হন। ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে নির্মমভাবে হত্যার পর কিশোর বয়সেই বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার দাবি করে রাজপথে মিছিল করেন তারেক সোলেমান সেলিম। পরে আলকরণ ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সভাপতির দায়িত্ব পেয়ে ৭৫’ পরবর্তী সময়ে নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়া এই এলাকার ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীদের সংগঠিত করেন তিনি।

২০০১ সালে বিএনপি সরকার ক্ষমতায় আসার পর তারেক সোলেমান সেলিমের বিরুদ্ধে মামলা দেওয়া হয়। কয়েকবার হামলার শিকারও হন তিনি। ২০০৪ সালে ২১ আগস্টের নির্মম ভয়াবহ গ্রেনেড হামলার প্রতিবাদে আন্দোলন করতে গিয়ে সন্ত্রাস দমন আইনে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

উল্লেখ্য, তিনি ১৯৯৪ সালে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে প্রথম কাউন্সিলর নির্বাচিত হন তারেক সোলেমান সেলিম। এরপর ২০০০, ২০০৪ এবং সর্বশেষ ২০১৫ সালে কাউন্সিলর নির্বাচিত হন এই নেতা।