জনগণের আস্থা-বিশ্বাসটা হচ্ছে আমাদের একমাত্র সম্বল,:প্রধানমন্ত্রী

 

আজ  শনিবার (৩ অক্টোবর)আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আছে বলেই দেশের জনগণ স্বস্তিতে আছে বলে মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় করোনাসহ সকল দুর্যোগ মোকাবেলায় নেতা-কর্মীরা সব সময় মানুষের পাশে থেকেছে বলেও উল্লেখ করেন আওয়ামী লীগ সভাপতি। সমালোচকদের কথায় কান না দিয়ে তৃণমূল পর্যায়ে সাংগঠনিক কার্যক্রম জোরদার করার আহ্বান জানান শেখ হাসিনা।করোনা পরিস্থিতিতে সাংগঠনিক কর্মকাণ্ডে গতি ফেরাতে ও অপেক্ষমান কিছু বিষয়ে সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত করতে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সভা। সভায় সভাপতিত্ব করেন দলের সভাপতি শেখ হাসিনা।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি গণভবনে  ৮১ সদস্যের কেন্দ্রীয় নেতাদের মধ্যে সীমিত সংখ্যক সদস্য নিয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।করোনাসহ সাম্প্রতিক সময়ের সকল দুর্যোগ মোকাবেলা করেছে আওয়ামী লীগ।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, জনগণের সংগঠন হচ্ছে আওয়ামী লীগ।আওয়ামী লীগ জনগণের পাশে আছে এবার এই দুর্যোগ করোনা মহামারির সময়েও প্রমাণ হয়েছে। জনগণের আস্থা-বিশ্বাসটা হচ্ছে আমাদের একমাত্র সম্বল, সেটাই আমাদের শক্তি। আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় ছিল বলেই মানুষ এই সহযোগিতাটা পেয়েছে। এখানে যদি অন্য কেউ থাকতো তাহলে কতো যে মানুষ মারা যেতো, কত যে দুরাবস্থার সৃষ্টি হতো তা ভাষায় বলা যায় না।বিশ্বের অর্থনীতি যখন বিপর্যস্ত তখন বাংলাদেশের অর্থনীতি সচল। কৃষকের ধানকাটাসহ সকল ক্ষেত্রে এগিয়ে আসায় তাদের কৃতজ্ঞতা জানান শেখ হাসিনা।

দলের সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আরোও জানান,সাংগঠনিক শক্তিটা হচ্ছে সবচেয়ে বড়। আওয়ামী লীগের এই যে তৃণমূল পর্যায়ে সাংগঠনিক শক্তি আছে

করোনা মোকাবেলার সময় তারা যখন মাঠে নেমেছে তখনই সেটা প্রমাণিত হয়েছে। আজকে যে কারণে আমার ৫২২ জন নেতাকর্মী মৃত্যু বরণ করেছে। এই দেশে তো গরীব মানুষের সেবা করা অনেক রকম প্রতিষ্ঠান, অনেক রকম কার্যক্রম আমরা দেখি কিন্তু করোনাকালীন সময়ে তো তাদের কোন কার্যক্রম দেখি নাই। এটা হলো বাস্তবতা।

দলের সাংগঠনিক কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে নেতাদের তাগিদ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, মাঠ পর্যায়ের মানুষের সঙ্গে যোগাযোগটা রক্ষা করে চলবেন, সেটাই আমরা চাই।

করোনা আক্রান্ত হয়ে যে সকল নেতাকর্মীরা মৃত্যু বরণ করেছেন তাদের প্রতি গভীর শোক জানানো হয় এ সভায়।

,