শক্তিশালী রূপ নিয়ে তীব্র গতিতে ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড়

 

আজ শনিবার(১০ অক্টোবর)আন্তর্জাতিক আবহাওয়া দফতরগুলো সপ্তাহখানেক আগেই পূর্বাভাসে জানান চলতি মাসে আঘাত হানতে পারে ঘূর্ণিঝড়। অবশেষে সেটিই সত্য হতে যাচ্ছে। পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপটি শক্তি সঞ্চয় করে ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়েছে। ভারতের আবহাওয়া দফতর এ নিয়ে সতর্ক করেছে। ঘূর্ণিঝড়টির বর্তমান বাতাসের গতিবেগ ঘণ্টার ৬৫ কিলোমিটার।  আগামী সোমবার সকালে এই ঘূর্ণিঝড় আরও শক্তিশালী রূপ নিয়ে ভারতের অন্ধপ্রদেশ উপকূলে আঘাত হানতে পারে। তবে গতিপথ পরিবর্তন করলে বাংলাদেশের উপকূলীয় অঞ্চলেও আঘাত হানার সম্ভাবনা রয়েছে। সেই সঙ্গে হতে পারে ভারী বৃষ্টিপাতও।

এই নিম্নচাপ এখন পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে। শক্তি সঞ্চয় করে এটি উত্তর-উত্তরপশ্চিম দিকে অগ্রসর হবে বলে জানান আবহাওয়া অধিদপ্তর।সরাসরি এই ঝড়ের প্রভাব পশ্চিমবঙ্গে না পড়লেও  উড়িশ্যা, অন্ধ্রপ্রদেশ, তেলেঙ্গানা, কর্ণাটক এবং মহারাষ্ট্রে রবিবার ও সোমবার প্রবল বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

এই দু’দিন আন্দামান সাগর থেকে বঙ্গোপসাগরের একাংশ উত্তাল থাকবে। সে কারণে অন্ধ্রপ্রদেশ, উড়িশ্যা ও আন্দামান উপকূলের জেলেদের এই সময়ের মধ্যে সাগরে মাছ ধরতে যেতে নিষেধ করা হয়েছে।

তবে ঘূর্ণিঝড় ‘গতি’র ব্যাপারে এখনও কোনও সতর্কতা বা বার্তা দেয়নি বাংলাদেশ আবহাওয়া অফিস।

প্রসঙ্গত, দেশের কোথাও কোথাও মাঝারী ধরনের বৃষ্টি-বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর। আজ সকাল ৯টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, সিলেট বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং ময়মনসিংহ, ঢাকা, খুলনা, বরিশাল এবং চট্টগ্রাম বিভাগের দু’এক জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারী ধরনের বৃষ্টি-বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে।

এছাড়া দেশের অন্যস্থানে আকাশ আংশিক মেঘলাসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে। পরবর্তী ৭২ ঘণ্টায় সারাদেশে আবহাওয়ার সামান্য পরিবর্তন আসতে পারে।

আবহাওয়ার সিনপটিক অবস্থায় বলা হয়েছে, উত্তর আন্দামান সাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় একটি লঘুচাপ সৃষ্ট লঘুচাপটি পূর্ব মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন উত্তর আন্দামান সাগরে সুস্পষ্ট লঘুচাপ হিসেবে অবস্থান করছে। এটি আরো ঘনীভূত হতে পারে।