পুলিশ যে কোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় প্রস্তুত: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

আজ রোববার( ৩ জানুয়ারি) ১৯ পৌষ, সারদা, রাজশাহীতে ৩৭তম বিসিএস (পুলিশ) ব্যাচের এএসপিগণের প্রশিক্ষণ সমাপনী ব্যাচের সহকারী পুলিশ সুপারগণের শিক্ষা সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেন, দেশজুড়ে সন্ত্রাস মোকাবেলা, জঙ্গি দমন, উপকূলীয় এলাকা জলদস্যুমুক্তকরণ, মাদকের বিরুদ্ধে অভিযান চালনাসহ দেশের শান্তিশৃঙ্খলা রক্ষায় কাজ করে যাচ্ছে পুলিশ।

তিনি বলেন, ‘লোকবল ও থানা বৃদ্ধি, ভৌত অবকাঠামো উন্নীতকরণ ও নতুন যানবাহন সংযোজনসহ অত্যাধুনিক প্রযুক্তিনির্ভর একটি চৌকস বাহিনী হিসেবে পুলিশের ক্রমাগত উন্নয়নে সরকার সদা সচেষ্ট রয়েছে। ফলে যেকোন চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় প্রস্তুত রয়েছে পুলিশ।’

৩৭তম বিসিএস পুলিশ ব্যাচের শিক্ষানবিশ সহকারী পুলিশ সুপারদের এক বছর মেয়াদী মৌলিক প্রশিক্ষণ সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্য এ কথা বলেন মন্ত্রী। অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে গণভবন থেকে প্রধান অতিথি হিসেবে যুক্ত হন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

নবীন পুলিশ কর্মকর্তাদের উদ্দেশে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘পুলিশের কার্যপদ্ধতি, সমাজে অপরাধের বিভিন্ন বৈশিষ্ট্য ও উপাদান, দেশে প্রচলিত আইন সম্পর্কে প্রশিক্ষণে লব্ধ জ্ঞান পুলিশ বাহিনীর নবীন কর্মকর্তাদের ভবিষৎ পথচলার পাথেয় হয়ে থাকবে।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তার সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি প্যারেড পরিদর্শন এবং অভিবাদন গ্রহণ করেন। প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বিভিন্ন বিষয়ে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনকারী পুলিশ সুপারদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন।

পুরস্কারপ্রাপ্তারা হলেন, বেস্ট শ্যুটার ও বেস্ট ফিল্ড পারফর্মার আবুল হোসাইন, বেস্ট ইন হর্সম্যানশিপ ফয়জুল ইসলাম এবং একাডেমিক ও বেস্ট প্রবেশনার শ্নেহশীর্ষ কুমার দাস। প্যারেডে ১৩ জন নারী অফিসারসহ ৯৭ জন শিক্ষানবিশি সহকারী পুলিশ সুপার অংশ নেয়।

কুচকাওয়াজ সমাপনী অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব মোস্তফা কামাল উদ্দীন। এ সময় পুলিশের আইজিপি ড. বেনজীর আহমেদ সারদা পুলিশ একাডেমিতে উপস্থিত ছিলেন।

স্বাগত বক্তব্যে আইজিপি বলেন, ‘উন্নয়নের অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রায় এগিয়ে চলছে বাংলাদেশ। পরিবর্তিত আর্থ-সামাজিক কাঠামো, পরিবর্তিত প্রেক্ষাপট যুক্ত করেছে নতুন নতুন চ্যালেঞ্জ। প্রতিনিয়ত বৈশ্বিক নতুন চ্যালেঞ্জের মুখোমুখী হচ্ছি আমরা। বাংলাদেশ পুলিশ বিশ্বায়ন-শিল্পায়নের এসব চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে যাচ্ছে সফলভাবে। এ অগ্রযাত্রায় আজ থেকে তোমরাও শামিল হলে। প্রশিক্ষণলব্ধ জ্ঞান, দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে নিজেদের মানবিকতা, সহযোগিতা, সহমর্মিতা ও পেশাদারিত্বের উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত হিসেবে তুলে ধরবে।

তিনি বলেন, ‘বর্তমান সময়ে দ্রুত পরিবর্তনশীল সমাজব্যবস্থায় বদলে যাচ্ছে অপরাধের ধরণ ও এর গতি প্রকৃতি, যুক্ত হচ্ছে নতুন নতুন অনুষঙ্গ। তাই নিষ্ঠা, সততার সঙ্গে দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি প্রতিনিয়ত অধ্যয়ন ও প্রশিক্ষণের মাধ্যমে পেশাগত উৎকর্ষ অর্জন করতে হবে। তোমাদের হয়ে উঠতে হবে নিপীড়িত মানুষের আশ্রয়স্থল।’

সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, রাজশাহী-৪ (বাগমারা) আসনের এমপি প্রকৌশলী এনামুল হক, সংরক্ষিত মহিলা এমপি আদিবা আঞ্জুম মিতা, পুলিশের নারী কল্যাণ সমিতির সভানেত্রী জীশান মীর্জা।