রাত পোহালেই চসিক চট্রগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচন

রাত পোহালেই চট্রগ্রাম সিটি করপোরেশনে মেয়র ও কাউন্সিলর পদে ভোটগ্রহণ শুরু হবে। সকাল ৮টায় শুরু হয়ে বিকাল ৪টা পর্যন্ত টানা ভোটগ্রহণ চলবে।সিটি করপোরশেন নির্বাচন উপলক্ষে নির্বাচন কমিশন (ইসি) সার্বিক প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে।আগামীকাল (বুধবার) অনুষ্ঠিতব্য চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে নিরাপত্তা নিশ্চিতে আট হাজার পুলিশ সদস্য থাকবে মাঠে। প্রতি কেন্দ্রে পুলিশ থাকবে ৬ জন ও আনসার সদ্য থাকবে ১২ জন।চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনে ৭৩৫ কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ হবে। এর মধ্যে ৪২৯ কেন্দ্রকে গুরুত্বপূর্ণ (ঝুঁকিপূর্ণ) হিসেবে চিহ্নিত করেছে পুলিশ, যা মোট কেন্দ্রের ৫৮ শতাংশ।
মূলত আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর ও বিদ্রোহী প্রার্থীদের দ্বন্দ্বে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে নির্বাচনী মাঠ।
নির্বাচনে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বী ৭ জন। কাউন্সিলর প্রার্থী ২২৫ জন। এবার ভোটার ১৯ লাখ ৩৮ হাজার ৭০৬ জন।

এদিন সকাল আটটা থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত টানা ভোট চলবে। মঙ্গলবার ২৬ জানুয়ারি বিকালে নির্বাচনি কর্মকর্তারা নির্বাচনি সামগ্রী নিজ নিজ কেন্দ্রে নিয়ে গেছেন।‘নির্বাচন সুষ্ঠু করার জন্য ম্যাজিস্ট্রেটসহ পর্যাপ্ত সংখ্যক আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী নিয়োগ করা হয়েছে। নির্বাচন কমিশনের নিজস্ব পর্যবেক্ষকরাও মাঠে থাকবেন। ভোটারদের নিরাপত্তায় বিজিবি, পুলিশ ও র‍্যাবের টিম টহলে থাকবে। এ ছাড়া, বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে বিভিন্ন বাহিনীর সদস্য মোতায়েন থাকবে। নির্বাচন কমিশন সুষ্ঠু ও সুন্দর নির্বাচন অনুষ্ঠানের সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে।’নগরীতে বিজিবি, পুলিশ ও গোয়েন্দা টিমের টহল জোরদার করা হয়েছে।বিকালের পর যানবাহন ও মার্কেটগুলোতে অনেকটাই ফাঁকা।এ রিপোট লিখা পর্যন্ত রাত ১১টা কোথাও বড় ধরনের অপৃতকর ঘটনার সংবাদ পাওয়া যায়নি ।তবে পর্যাপ্ত সংখ্যক আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর তৎপরতা লক্ষ্য করা গেছে।