ব্রেকিং নিউজ » সামষ্টিক চিন্তায় চট্টগ্রামকে আধুনিক শহরে রূপান্তর করব » সুধী সমাবেশে (চসিক) নতুন মেয়র

এস,আহমেদ ডেক্স প্রতিবেদনঃ চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) নতুন মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরীর দায়িত্ব গ্রহণ উপলক্ষে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে সুধী সমাবেশ।

সোমবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) বেলা ১১টায় চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) এর আয়োজনে সমাবেশ বীর মুক্তিযোদ্ধা মেয়র রেজাউল করিম চৌধুরী। রসভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল।সহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে মিলনায়তনে বিপূল সমাগম ঘঠে।
চসিকের ষষ্ঠ নির্বাচিত পরিষদের মেয়র বলেন, সামষ্টিক চিন্তায় চট্টগ্রামকে আধুনিক শহরে রূপান্তর করব। অনেকে মনে করে, চট্টগ্রাম শুধু মেয়রের। আমি সেই পুরনো ধারণা ভেঙে দিতে চাই। রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, আমার কথা ইশতেহারে বলে দিয়েছি। এ চট্টগ্রামে অনেক জ্ঞানী, সাংবাদিক, শিল্পী, বুদ্ধিজীবী, বিশেষজ্ঞ আছেন। তাদের মেধা আমি কাজে লাগাতে চাই। রাস্তার যানজট থেকে বিভিন্ন সমস্যা মেয়রের ওপর এসে পড়ে। এ শহর আমার আপনার সবার। তাই সবার সঙ্গে পরামর্শ করতে চাই, মেধা কাজে লাগাতে চাই।


চট্টগ্রামকে পরিকল্পিতভাবে গড়ে তুলতে চাই। কারণ ব্যক্তির চিন্তা চেতনায় ভুল থাকতে পারে। সামষ্টিক চিন্তায় ভুল হওয়ার সম্ভাবনা নেই। সফলতা এলে সবার।

তিনি বলেন, আমি শুধু মুখপাত্র, প্রতিনিধি। ভোটের জন্য দুয়ারে দুয়ারে গেছি৷ পাঁচ বছরও সবার সঙ্গে পরামর্শ করে এগিয়ে যাবো। আমি ব্যবসায়ী থেকে শুরু করে সব শ্রেণি পেশার সবার সহযোগিতা চাই। আমার পরিষ্কার কথা হচ্ছে, যে সেবা সংস্থা গাফিলতি করবে তাদের জবাবদিহি করতে হবে। অনেক সমম্বয় সভা হয়েছে, কিন্তু কার্যকর সেবা পায়নি। মেয়রের নির্বাহী ক্ষমতা থাকা উচিত। জনভোগান্তি যেমন কমবে টাকারও অপচয় হবে না।

জননেত্রী শেখ হাসিনা নিজ হাতে চট্টগ্রামের উন্নয়নভার নিয়েছেন। টানেল, এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে, বঙ্গবন্ধু শিল্পনগর, কক্সবাজার পর্যন্ত রেললাইন হচ্ছে। আমি জননেত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাই। জনগণ জননেত্রীর উন্নয়নের ওপর আস্থা রেখেছেন বলে নৌকাকে জয়ী করেছেন৷

বক্তারা বলেন, “মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা রেজাউল করিম চৌধুরীকে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র পদে মনোনয়ন দিয়েছিলেন এবং তিনি নির্বাচিত হয়েছেন- এটা আমাদের জন্য অত্যন্ত গর্বের এবং আনন্দের বিষয়। এই চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের ইতিহাসে দু’জন বীর মুক্তিযোদ্ধা মেয়র হয়েছিলেন। তাদের দেশপ্রেম, কর্মনিষ্ঠা আমরা দেখেছি। আরেকজন বীর মুক্তিযোদ্ধা রেজাউল করিম চৌধুরীর কাছ থেকেও আমরা সেই একই কর্মনিষ্ঠা দেখতে চাই। এর প্রমাণ অবশ্য তিনি ইতোমধ্যেই দিয়েছেন যে, সবার মতামত গ্রহণ করেই তিনি দায়িত্ব নিচ্ছেন।”

শুরুতে বিভিন্ন ধর্মের প্রার্থনার মাধ্যমে সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় বক্তব্য দেন চসিকের বিদায়ী প্রশাসক খোরশেদ আলম সুজন, নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী, সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম চৌধুরী, সংসদ সদস্য ও দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোছলেম উদ্দিন আহমদ, নগর মহিলা লীগের সভাপতি হাসিনা মহিউদ্দিন, সাবেক মেয়র মাহমুদুল ইসলাম চৌধুরী, চুয়েট উপাচার্য ড. রফিকুল আলম, চবির সাবেক উপাচার্য আনোয়ারুল আজিম আরিফ, ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী, চট্টগ্রাম চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম, ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী একেএম ফজলুল্লাহ, নগর মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মোজাফফর আহমদ, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী ফরিদ, দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, সিডিএর সাবেক চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম, চসিকের সাধারণ ও সংরক্ষিত ওয়ার্ডের নির্বাচিত কাউন্সিলররা।