মধুর নামে চিনির সিরাপ খাচ্ছেন না তো?

করোনার সংক্রমণ থেকে শুরু করে খেলে ঠাণ্ডা লাগা, কফ, কাশির সমস্যা কমে যায় নিয়মিত মধু খেলে। তবে খেতে হবে আসল-খাঁটি মধু।এছাড়াও
• মধু ও দারুচিনির গুঁড়া মিশিয়ে খেলে তা রক্তনালীর বিভিন্ন সমস্যা দূর করে এবং রক্তনালী পরিষ্কার করতে সাহায্য করে• শরীরে শক্তি যোগায় এবং শরীরকে কর্মক্ষম রাখতে সাহায্য করে

• নিয়মিত মধু খেলে লিভার পরিষ্কার থাকে, শরীরের বিষাক্ত উপাদানগুলো বের করে দেয় এবং শরীরের মেদ গলে বের হয়ে যায়

• ওজন নিয়ন্ত্রণে থাকে।

অনেক অসাধু ব্যবসায়ী চিনির সিরাপ মিশিয়ে মধু বিক্রি করছে। তাই জেনে নেওয়া যাক খাঁটি মধু চিনে নেওয়ার কয়েকটি সহজ উপায়

• মধুর স্বাদ হবে মিষ্টি, এতে ঝাঁঝালো ভাব থাকবে না

• শীতের দিনে বা ঠাণ্ডায় খাঁটি মধু দানা বেঁধে যায়

• সামান্য মধু আঙ্গুলে নিন, এর পুরুত্ব দেখুন। আসল মধু অনেক বেশি আঠালো হবে

একগ্লাস পানিতে মধু ড্রপ আকারে ছেড়ে দিন, খাঁটি মধু ড্রপ অবস্থায়ই গ্লাসের নিচে চলে যাবে

• মধুতে পিঁপড়া ধরবে না
• এক টুকরো ব্লটিং পেপার নিন, তাতে কয়েক ফোঁটা মধু দিন। যদি কাগজ তা সম্পূর্ণ শুষে নেয়, বুঝবেন মধুটি খাঁটি নয়।

মধুতে প্রায় ৪৫টিও বেশি খাদ্য উপাদান থাকে। তবে এতে সাধারণত কোনো চর্বি ও প্রোটিন নেই। প্রতি ১০০ গ্রাম মধু থেকে আমরা পাই ৩০৪ ক্যালরি।