২০ জেলার ২৯ পৌরসভায় ভোটগ্রহণ চলছে

পঞ্চম ধাপে দেশের ২০ জেলার ২৯ পৌরসভায় ভোটগ্রহণ চলছে। রোববার (২৮ ফেব্রুয়ারি) সকাল ৮টায় ভোটগ্রহণ শুরু হয়; একটানা চলবে বিকাল ৪টা পর্যন্ত। এই ধাপে সব পৌরসভায় ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে ভোটগ্রহণ করা হচ্ছে। এ নিয়ে সাধারণ ভোটারদের মধ্যে আগ্রহের পাশাপাশি আশঙ্কাও রয়েছে।

নির্বাচন কমিশন (ইসি) জানিয়েছে, একইদিনে দেশের চারটি উপজেলা পরিষদে চেয়ারম্যান এবং ১৪টি ইউনিয়ন পরিষদে বিভিন্ন পদে উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। কুমিল্লার দেবীদ্বার উপজেলা পরিষদের উপনির্বাচনও এদিন হচ্ছে। এছাড়া এর আগে অনুষ্ঠিত সাতটি পৌরসভায় বন্ধ ঘোষিত ভোটকেন্দ্রগুলোতে এবং মৃত্যুজনিত কারণে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের ৩১ নম্বর ওয়ার্ড, ঝিনাইদহের শৈলকুপা পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ড, পিরোজপুরের স্বরূপকাঠি পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ড, এবং সিরাজগঞ্জ পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদেও আজ ভোটগ্রহণ করা হচ্ছে। এর মধ্যে চট্টগ্রাম সিটি ও শৈলকুপায় ভোটগ্রহণ হচ্ছে ইভিএমে।

একই দিন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের ৩১ নম্বর ওয়ার্ড, ঝিনাইদহের শৌলকুপা পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ড, পিরোজপুরের স্বরূপকাঠি পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ড এবং সিরাজগঞ্জ পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডের সাধারণ কাউন্সিলর পদে ভোট হচ্ছে। চতুর্থ ধাপে স্থগিত হওয়া নরসিংদীর চারটি, শরীয়তপুরের দুটি ও সোনাইমুড়ির একটি কেন্দ্রে ভোট হচ্ছে আজ।

সূত্র আরও জানিয়েছে, পঞ্চম ধাপের ২৯ পৌরসভায় মেয়র পদে ১০০ জন, সাধারণ ওয়ার্ডে এক হাজার ২৭০ এবং সংরক্ষিত ওয়ার্ডে ৩৪২ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এসব পৌরসভায় ৬২৫টি ভোটকেন্দ্র ও চার হাজার ২২৯টি ভোটকক্ষ রয়েছে। ভোটার রয়েছেন ১৩ লাখ ৮৪ হাজার ১৬৫ জন, যাদের মধ্যে পুরুষ ৬ লাখ ৯৩ হাজার ৯০ জন এবং নারী ৭ লাখ ১১ হাজার ৮৫০ জন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো জানিয়েছে, পঞ্চম ধাপের ১৪ পৌরসভায় ২২ স্বতন্ত্র প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তাদের বেশিরভাগই আওয়ামী লীগ ও বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী। এসব একই দলের মনোনীত ও বিদ্রোহী প্রার্থীর কর্মী-সমর্থকদের মধ্যে সহিংসতার শঙ্কা রয়েছে বলে জানান কয়েকজন রিটার্নিং কর্মকর্তা।

যেসব পৌরসভায় এক বা একাধিক স্বতন্ত্র প্রার্থী রয়েছে, সেগুলো হচ্ছে– জয়পুরহাট, বগুড়া, নাচোল, মহেশপুর, কালীগঞ্জ, চরফ্যাশন, ইসলামপুর, ভৈরব, হবিগঞ্জ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, শাহরাস্তি, রায়পুর, কালীগঞ্জ ও সৈয়দপুর।

জানা গেছে, ১৩ পৌরসভায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বাড়তি সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। রিটার্নিং কর্মকর্তা ও স্থানীয় প্রশাসনের অনুরোধে এসব সদস্য বাড়ানো হয়। পৌরসভাগুলো হচ্ছে– চারঘাট, জামালপুর, ইসলামপুর, সৈয়দপুর, কালীগঞ্জ, ভৈরব, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, বগুড়া, হবিগঞ্জ, নান্দাইল, ভোলা, কালীগঞ্জ ও শাহরাস্তি। এ ছাড়া কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলা পরিষদেও বাড়তি সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।