ঠাকুরগাঁওয়ে পুলিশ কর্মকর্তার অত্যাচারে অতিষ্ঠ এলাকাবাসী!

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি : ঠাকুরগাঁওয়ে শাহজালাল নামে এক ব্যক্তির উপর একের পর এক মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানির শিকার করার অভিযোগ উঠেছে এক পুলিশ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে। তার এহেন কর্মকান্ডে অতিষ্ঠ এলাকাবাসী।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার দেবীপুর ইউনিয়নের কালেশ্বরগাঁও সরকার পাড়া গ্রামের সহিদুর রহমান এক সময়ে পঞ্চগড় জেলার বোদা হাইওয়ে থানায় কর্মরত ছিলেন। বর্তমানে তিনি চট্টগ্রামে ট্রাফিক সার্জেন্ট হিসেবে কর্মরত আছেন। পুলিশে চাকুরী করার সুবাদে ক্ষমতার অপব্যবহার করে অর্থের বিনিময়ে স্থানীয় কিছু সন্ত্রাসীকে দিয়ে শাহজালাল সুমন ও তার পরিবারের উপর হামলাসহ একের পর এক মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করে আসছেন। তার বিপক্ষে কেউ মুখ খুললে তাকে বিভিন্ন ভাবে হুমকি-ধামকি ও মামলার ভয় দেখান বলে জানায় স্থানীরা।

এলাকাবাসী জানায়, সহিদুর রহমান এতই টাকার মালিক হয়েছেন যে, নামে বে-নামে বেশকয়েটি বাড়িসহ গড়েছেন অঢেল সম্পদের পাহাড়। তার এই অর্থের দাপট দেখিয়ে স্থানীয় কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তিকে ব্যবহার করে গ্রামের নিরীহ সহজ সরল মানুষের দীর্ঘদিনের ভোগদখলীয় জমি ভূয়া কাগজ তৈরী করে নিজের আওয়াতায় নেয়ার পায়তারা করছে। তিনি এলাকার সহজ সরল মানুষের উপর হাফ ডজন মামলা দায়ের করেছেন। তিনি বর্তমানে এজাহার ভুক্ত মামলার আসামী।

নাম না প্রকাশ করার শর্তে ৬০বছর বয়সী এক মসজিদের ইমাম জানন, আমি গ্রামের ঐ পুলিশ কর্মকর্তার কর্মকান্ড দেখে হতভাগ হয়েছি। কিছু বললেই মামলার হুমকি।

ভুক্তভোগী শাহজালাল সুমন জানান, জমির সকল বৈধ কাগজ পত্র থাকা সত্যেও সহিদুর রহমান পুলিশ প্রশাসনকে হাত করিয়ে আমাদের বিভিন্ন ভাবে হয়রানি করছেন। তার ভাড়া করা বাহিনীর অত্যাচারে এলাকা ছাড়া হয়েছি।

এ প্রসঙ্গে সহিদুর রহমানের সাথে কথা হলে তিনি জানান. আমার বিরুদ্ধে যে সমস্ত অভিযোগ তুলে ধরা হয়েছে, তা ভিত্তিহীন।

ঠাকুরগাঁও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তানভিরুল ইসলাম বলেন, তার বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের বিষয়টি জেনেছি। যা সিআইডিতে তদন্তধীন।