করোনা সংক্রমণের বিস্তার রোধে,স্বাস্থ্যবিধি মানতেই হবে : চসিক মেয়র

আজ মঙ্গলবার(২৭ এপ্রিল)চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা এম.রেজাউল করিম চৌধুরী জানান,করোনা সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় বিধি-নিষেধ বা লকডাউন আরো এক সপ্তাহ কার্যকর থাকায় সরকারি সিদ্ধান্ত কঠোরভাবে পালনের জন্য নগরবাসীর প্রতি আহ্বান জানান। সরকারি নিষেধজ্ঞা আরোপ করা সত্ত্বেও সাধারণ জনগণের মধ্যে তা পালনে অনীহা-ঢিলেমী এবং অসচেতনতায় পরিস্থিতিকে দ্রুত অবনতিশীল করেছে। তাই জনস্বাস্থ্য রক্ষায় আর তিল পরিমাণ ছাড় দেয়া যাবে না। তা না হলে বড় ধরণের মহা বিপর্যয় ডেকে আনবে।

আজ দুপুরে টাইগারপাসস্থ সিটি কর্পোরেশনের অস্থায়ী কার্যালয়ে ঢাকা ব্যাংক লিমিটেডের পক্ষ থেকে প্রদেয় ২৫০০টি মাস্ক ও ৩০০টি হ্যান্ডস্যানিটাইজার গ্রহণকালে এসব কথা বলেন।

এ ক্ষেত্রে কঠোরভাবে লকডাউনে মানার ক্ষেত্রে যাতে কোন বত্যয় না ঘটে সে ব্যাপারে প্রশাসন ও আইন শৃঙ্খলা বাহিনীকে জিরোটলারেন্স নীতি অবলম্বনের উপর গুরুত্ব দিয়ে জনস্বাস্থ্য নিরাপত্তার হুমকীর কারণগুলোর পুনরাবৃত্তি রোধে যা-যা করা প্রয়োজন তা শতভাগ প্রয়োগ করার জন্য আহ্বান জানান।

তিনি আরো বলেন, লকডাউন চলাকালীন সময়ে প্রয়োজন ছাড়া মানুষকে ঘরের বাইর না যেতে, জন সমাগম এড়িয়ে চলতে, স্বাস্থ্যবিধি মানতে এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে এলাকাভিত্তিক অভিযান, প্রচারণা, উদ্বুদ্ধকরণ উদ্যোগের দ্বায়িত্ব স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, সামাজিক ও রাজনৈতিক শক্তিকেই নিতে হবে এবং লকডাউন কার্যকারিতা নিশ্চিত করণে অঞ্চল ভিত্তিক মনিটরিং ব্যবস্থাপনা চলমান রাখতে হবে।

তিনি আরো বলেন, লকডাউন চলাকালীন সময়ে অন্যান্য সেবা সংস্থাগুলোর মতই চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের পরিচ্ছন্নতা ও চিকিৎসা সহয়তাসহ জরুরী সেবা কার্যক্রম গুলো চলমান থাকবে, এছাড়া চসিক আইসোলেশন সেন্টারে বিনামূল্যে করোনা আক্রান্তদের চিকিৎসাসহ সব ধরণের সেবা দেয়ার জন্য সার্বক্ষণিক উন্মুক্ত রয়েছে বলে জানান।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন কাউন্সিলর শৈবাল দাশ সুমন, চসিক অতিরিক্ত প্রধান হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা মো. হুমায়ুন কবির চৌধুরী, ঢাকা ব্যাংক চট্টগ্রাম বিভাগের রিজিওন্যাল ম্যানেজার মো. নুরুল আরশাদ চৌধুরী, আন্দরকিল্লা শাখার ম্যানেজার মো. রফিকুল ইসলাম, আমিনুল ইসলাম প্রমুখ।