চীনের সিনোভ্যাকের টিকা অনুমোদন পেল ডব্লিউএইচও’র

চীনের সিনোভ্যাক বায়োটেক কোম্পানির ‘কোরোনাভ্যাক’ কোভিড টিকা জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। এ নিয়ে চীনের উৎপাদিত করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় টিকা অনুমোদন পেল।মঙ্গলবার টিকা অনুমোদন করার কথা জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কাছ থেকে টিকা জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন পাওয়ার মানে বিশ্বের দেশগুলো এ টিকার মান ও কার্যকারিতায় আস্থা রাখতে পারে।

১৮ বছরের বেশি বয়সীদের জন্য সিনোভ্যাকের এই টিকার দুই ডোজ সুপারিশ করেছে সংস্থাটির বিশেষজ্ঞ প্যানেল। প্রথম ডোজ গ্রহণের দুই থেকে চার সপ্তাহ পর দ্বিতীয় ডোজ নেওয়া যাবে।

এর আগে গত ৭ মে চীনের রাষ্ট্রায়ত্ত ওষুধ কোম্পানি সিনোফার্মের তৈরি দুটি টিকার মধ্যে ‘বিবিআইবিপি-করভি’ জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন দিয়েছিল ডব্লিউএইচও।

ডব্লিউএইচও তারও আগে ফাইজার-বায়োএনটেক, অ্যাস্ট্রাজেনেকা, জনসন অ্যান্ড জনসন এবং মডার্নার টিকাও জরুরি ব্যবহারের জন্য অনুমোদন দিয়েছিল।

চীনের সিনোভ্যাকের এই টিকাকে কোভ্যাক্স প্রোগ্রামের আওতায়ও আনবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। মূলত গরিব দেশগুলোর টিকাপ্রাপ্তি নিশ্চিত করতে কোভ্যাক্স নামের এই প্ল্যাটফার্ম গড়ে তোলে সংস্থাটি।

উল্লেখ্য, সিনোভ্যাকের তৈরি টিকার ডব্লিউএইচও অনুমোদন করলেও বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশে আগে থেকেই এ টিকার প্রয়োগ শুরু হয়েছে।

গবেষণায় দেখা গেছে, সিনোভ্যাকের টিকা গ্রহীতাদের অর্ধেকের বেশি মানুষ উপসর্গযুক্ত করোনা থেকে রক্ষা পেয়েছেন। আর গুরুতর অসুস্থতা ও হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার মতো অবস্থা থেকে মুক্ত হয়েছেন শতভাগ।