রাজধানী ছাড়ছে মানুষ,কোন ভাবেই স্বাস্থ্যবিধি নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না

বুধবার সকাল থেকেই রাজধানীর বিভিন্নস্থান থেকে রিক্সায় করে গাবতলী আসে কর্মজীবী মানুষ। চেকপোস্ট থাকায় একটু দুরে গিয়ে ব্যক্তিগত গাড়ী ভাড়া করছেন কেউ কেউ। কারো আবার ভরসা ট্রাক বা অটোরিক্সা। মানা হচ্ছেনা স্বাস্থ্যবিধিও। কোন ভাবেই নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না রাজধানী ছেড়ে যাওয়া মানুষকে। চলমান বিধিনিষেধ আরো কঠোর করার সিদ্ধান্তে আজও ঢাকা ছেড়েছেন অনেকে।গণপরিবহণ বন্ধ থাকলেও দ্বিগুণ ভাড়ায় ব্যক্তিগত যানবাহনে গ্রামের দিকে ছুটছেন তারা। মানা হচ্ছেনা স্বাস্থ্যবিধি। তবে, মোটর সাইকেলে দু’জন থাকলে করা হচ্ছে জরিমানা।

এবার সাত দিনের কঠোর বিধিনিষেধ। বন্ধ থাকবে সরকারী-বেসরকারী অফিস। আগেই বন্ধ রয়েছে গণপরিবহণ। এ অবস্থায় অনেকটাই ঝুঁকি নিয়ে গ্রামে ফিরছে সাধারণ মানুষ।

গণপরিবহণ না থাকায় ভোগান্তি ছিলো সবখানেই। সাধারণ মানুষ বলছে, বিধিনিষেধের সময়ে কোন কাজ থাকবে না তাদের। এ অবস্থায় গ্রামে থাকতেই স্বাচ্ছন্দবোধ করবেন তারা।

নিয়ম মানাতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কঠোর অবস্থান থাকলেও মানুষকে নিয়ন্ত্রন করা সম্ভব হচ্ছেনা। নানা অজুহাতে বেরিয়ে যাচ্ছেন তারা। তবে, মোটর সাইকেলে দু’জন থাকলে জরিমানা করছে পুলিশ।