তালেবান সরকারের শপথ অনুষ্ঠান বাতিল

তালেবান সরকারের শপথ অনুষ্ঠান বাতিল
যুক্তরাষ্ট্রে ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলার (৯/১১) বিশ বছর পূর্তির দিনে শনিবার (১১ সেপ্টেম্বর) আফগানিস্তানে তালেবানের নেতৃত্বাধীন নতুন অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের শপথ নেওয়ার কথা ছিল। তবে, মিত্র দেশগুলোর চাপ বা আর্থিক সীমাবদ্ধতার কারণে সেই অনুষ্ঠান বাতিল করা করা হয়েছে। বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে রাশিয়া, ইরান, চীন, কাতার ও পাকিস্তানকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। তবে, মিত্র দেশগুলোর পক্ষ থেকে চাপ আসায় সেই অনুষ্ঠান বাতিল করা হয়। সেই সঙ্গে দেশটিতে নগদ অর্থের ঘাটতি থাকায় অর্থ সাশ্রয়ের জন্যও এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হতে পারে। এদিকে তালেবান সরকারের সাংস্কৃতির কমিশনের সদস্য ইনামুল্লাহ সামানগানি টুইটে লিখেছেন, ‘কয়েকদিন আগেই নতুন আফগান সরকারের অভিষেক অনুষ্ঠান বাতিল করা হয়। সরকার মানুষকে আর বিভ্রান্ত করতে চায় না। ইতোমধ্যে ইসলামিক আমিরাত আফগানিস্তানে মন্ত্রিসভা ঘোষণা হয়েছে। সবাই কাজও শুরু করেছেন। ’ শুক্রবার (১০ সেপ্টেম্বর) রাশিয়ার পক্ষ থেকে জানানো হয়, তালেবানের সরকারের অভিষেক অনুষ্ঠানে ক্রেমলিনের পক্ষ থেকে কেউ থাকবে না। যদিও এর আগে মস্কো জানিয়েছিল, আফগানিস্তানের নতুন অন্তবর্তীকালীন সরকারের শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে তাদের পক্ষ থেকে রাষ্ট্রদূত পর্যায়ের সরকারি কর্মকর্তারা উপস্থিত থাকবেন। জানা গেছে, যুক্তরাষ্ট্র ও তাদের ন্যাটো মিত্ররা ৯/১১ হামলার ২০ বছর পূর্তির দিনে আফগানিস্তানে নতুন সরকারের শপথ অনুষ্ঠানকে ‘অমানবিক’ আখ্যা দিয়ে কাতার সরকারকে তা বাতিল করতে তালেবানকে পরামর্শ দেওয়ার জন্য চাপ দেয়। এরপর শপথ অনুষ্ঠান বাতিলের এ খবর আসলো। গত ১৫ আগস্ট কাবুলে প্রবেশের মধ্য দিয়ে গোটা আফগানিস্তানে নিজেদের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করে তালেবান। ২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের টুইন টাওয়ারে হামলার এক মাসের মাথায় আল-কায়েদাকে আশ্রয় দেওয়ার অভিযোগ তুলে আফগানিস্তানে সামরিক অভিযান শুরু করেছিল যুক্তরাষ্ট্র। অভিযানের এক মাস পর আফগানিস্তানের তৎকালীন তালেবান সরকার ক্ষমতাচ্যুত হয়। গত ৩০ আগস্ট মার্কিন সেই অভিযানের সমাপ্তি হওয়ায় ফের ক্ষমতায় ফিরেছে তালেবান।