নগরীর জেএম সেন হল পূজামন্ডপে হামলার প্রতিবাদে বিশাল বিক্ষোভ সমাবেশ

নগরীর জেএম সেন হল পূজামন্ডপে হামলার প্রতিবাদে বিশাল বিক্ষোভ সমাবেশ
চট্টগ্রামে মন্দিরে হামলার প্রতিবাদে ও জগন্যতম সাম্প্রদায়িক শক্তির বর্বতার বিরুদ্ধে চট্টগ্রাম মহানগর পূজা উদযাপন পরিষদ এর উদ্দ্যেগে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাব চত্বরে বিক্ষোভ সমাবেশে হাজারো হাজারো জনগনের প্রতিবাদে অবস্থান।। শনিবার অক্টোবর ১৬, ২০২১, ১ কার্তিক আধাবেলা হরতাল পালন করে বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ। পরে সমাবেশ থেকে আগামী ২৩ অক্টোবর গণঅনশন ও বিক্ষোভ কর্মসূচির ঘোষণা দেওয়া হয়। এছাড়া সেখানে ৫০০ জনকে আসামি করে মামলা হয়েছে। এসব ঘটনায় দেশের বিভিন্ন স্থানে দেড়শতাধিক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। শুক্রবার নগরীর জেএম সেন হল পূজামন্ডপে হামলার ঘটনায় মামলা হয়েছে। এতে পুলিশের অভিযানে আটক ৮৩ জনসহ অজ্ঞাতনামা প্রায় ৫০০ জনকে আসামি করা হয়েছে। গতকাল কোতোয়ালী থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলাটি দায়ের করা হয়। এদিকে বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ সারাদেশে শারদীয় দুর্গোত্সব চলাকালে সংঘটিত সামপ্রদায়িক হামলা ভাঙচুরের নিন্দা জানিয়ে বিভিন্ন কর্মসূচি ঘোষণা করেছে। গতকাল এই সংগঠন চট্টগ্রামে আধাবেলা ধর্মঘট কর্মসূচিও পালন করে। ধর্মঘট শেষে দুপুরে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট রানা দাশগুপ্ত বলেন, ‘সংঘটিত ঘটনাসমূহকে বিচ্ছিন্ন ঘটনা বলে আর উড়িয়ে দেওয়ার সুযোগ নেই। এর সবগুলোই পরিকল্পিত, যার মূল লক্ষ্য হচ্ছে বাংলাদেশের ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের দেশ থেকে বিতাড়িত করে পুরো দেশকে সামপ্রদায়িক রাষ্ট্রে পরিণত করা।’

তিনি আরো বলেন, এই চক্রান্ত প্রতিরোধে আগামি শনিবার (২৩ অক্টোবর) সারাদেশে ভোর ৬টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত গণ-অনশন ও গণ-অবস্থান এবং বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া আগামী ফেব্রুয়ারি মাসে সারা দেশ থেকে রোডমার্চ করে ঢাকায় গিয়ে সমাবেশ ও প্রধানমন্ত্রীর কাছে দাবিনামা পেশের সিদ্ধান্তও রয়েছে।