আজ (৩ নভেম্বর) জেল হত্যা দিবস

আজ (৩ নভেম্বর) জেল হত্যা দিবস
আজ (৩ নভেম্বর) জেল হত্যা দিবস। স্বাধীন বাংলাদেশের ইতিহাসে একটি কলঙ্কময় দিন। ১৯৭৫ সালের এই দিনে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি অবস্থায় মুক্তিযুদ্ধ পরিচালনাকারী বাংলাদেশের প্রথম অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম, প্রধানমন্ত্রী তাজউদ্দীন আহমদ, মন্ত্রিসভার সদস্য ক্যাপ্টেন এম মনসুর আলী এবং এএইচএম কামরুজ্জামানকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয়।
১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট কালো রাতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে নির্মমভাবে হত্যার ধারাবাহিকতায় আড়াই মাসের মাথায় জাতীয় এই চার নেতাকে বেয়নেট দিয়ে খুঁচিয়ে খুঁচিয়ে হত্যা করে ঘাতকরা। কারাগারের মতো কঠোর নিরাপত্তা প্রকোষ্ঠে এ ধরনের নারকীয় হত্যাকাণ্ড পৃথিবীর ইতিহাসে নজিরবিহীন।এ হত্যাকাণ্ড স্মরণে প্রতি বছর ৩ নভেম্বর জেলহত্যা দিবস হিসেবে পালিত হয়ে আসছে।এবার করোনাভাইরাস সংক্রমণের বাস্তবতায় জেলহত্যা দিবসে সীমিত পরিসরে নানা কর্মসূচি পালন করবে সারাদেশসহ চট্রগ্রামে আওয়ামী লীগ এবং এর সহযোগী সংগঠনগুলো। আজ সূর্যোদয়ের ক্ষণে নগর ও উত্তর দক্ষিন আওয়ামী লীগের কার্যালয় ও সারা দেশের শাখা কার্যালয়গুলোতে জাতীয় ও দলীয় পতাকা অর্ধনমিতকরণ এবং কালো পতাকা উত্তোলন করা হবে। ১৫ আগস্টের হত্যাকাণ্ডে সব শহীদ ও জাতীয় তিন নেতার স্মরনে, ফাতেহা পাঠ, মিলাদ মাহফিল ও মোনাজাত আলোরচনা অনুষ্ঠিত হবে। ৩রা নভেম্বর সকাল ১০টায় রাইফেল ক্লাবস্থ থিওটার ইনস্টিটিউট হলে চট্টগ্রাম আওয়ামী লীগ উদ্যোগে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে।
বিনম্র শ্রদ্ধা বঙ্গবন্ধুসহ জাতীয় চার নেতার প্রতি।