বাংলাদেশে আসা ফিলিপাইনি নারী এখন ইউপি সদস্য

বাংলাদেশে আসা ফিলিপাইনি নারী এখন ইউপি সদস্য
ডেক্স প্রতিবেদনঃ ভালোবাসার টানে নিজ দেশ-ধর্ম ছেড়ে ১০ বছর আগে ছুটে আসেন বাংলাদেশে। ভালোবেসে বিয়ে করেছিলেন ময়মনসিংহের মো. জুলহাস উদ্দিনকে। এবার ফুলবাড়িয়ার ১১নং রাধাকানাই ইউনিয়ন থেকে ইউপি নির্বাচনে ১, ২ ও ৩নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত ওয়ার্ডের সদস্য পদে নির্বাচিত হলেন জিন ক্যাটামিন পেট্রিয়াকা ওরফে জেসমিন আক্তার।দ্বিতীয় ধাপে অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছিলেন রাধাকাইন ইউনিয়নের কোদালি পাড় গ্রামের জুলহাসের স্ত্রী ফিলিপাইনের মেয়ে (বর্তমানে বাংলাদেশের নাগরিক) জেসমিন। সংরক্ষিত ওয়ার্ডে তিন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। তাতে মাইক প্রতীক নিয়ে ৪ হাজার ৪৯৬ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন তিনি। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী পেয়েছেন ১ হাজার ৮৩৭ ভোট।

জানা গেছে, ১৯৯৮ সালের শেষের দিকে একটি কোম্পানিতে চাকরি করতে সিঙ্গাপুর পাড়ি জমান ফুলবাড়িয়ার রাধাকানাই ইউনিয়নের দবরদস্তা গ্রামের আবদুস সামাদ মণ্ডলের ছেলে জুলহাস মিয়া। সেখানে কিছুদিন চাকরি করার পর একই কোম্পানিতে চাকরিরত ফিলিপাইনের নাগরিক জিন ক্যাটামিন পেট্রিয়াকার সঙ্গে পরিচয় হয়। দীর্ঘদিনের প্রবাসজীবনে তাদের মধ্যে সেই পরিচয় ভালোবাসায় গড়ায়। একপর্যায়ে চাকরি ছেড়ে জিন ক্যাটামিন পেট্রিয়াকা তার নিজ দেশ ফিলিপাইনে চলে যান। অন্যদিকে, জুলহাস মিয়াও বাংলাদেশে চলে আসেন। কিন্তু তারা প্রেমের সম্পর্ক ঠিক রাখাতে মুঠোফোনে নিয়মিত যোগাযোগ চালিয়ে যান।

পরে জিন ক্যাটামিন পেট্রিয়াকাকে বিয়ে করতে ফিলিপাইনে যান জুলহাস। জিনের পারিবারিক সম্মতিক্রমে বিয়ের সব আয়োজন ঠিক করেন ২০১০ সালের দিকে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন ।জিন ক্যাটামিন পেট্রিয়াকা। তার নতুন নাম রাখা হয় জেসমিন আক্তার জুলহাস। বাংলাদেশে ফিরে আসার পর এ দেশের নাগরিকত্ব পান তিনি।