পার্বত্য চট্টগ্রামে উচ্চমূল্যের মসলা চাষ প্রকল্প

পার্বত্য চট্টগ্রামে উচ্চমূল্যের মসলা চাষ প্রকল্প
পার্বত্য চট্টগ্রামের প্রত্যন্ত এলাকায় উচ্চমূল্যের মসলা চাষ’ একটি পাইলট প্রকল্প। এটি ২০১৮ সালের জুন থেকে ২০২২ সালের জুন পর্যন্ত চারবছর মেয়াদ। প্রকল্পের মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ৩৪ কোটি ৮৭ লাখ ২৫ হাজার টাকা। পার্বত্য চট্টগ্রামের বিভিন্ন এলাকায় উন্নত জাতের মসলা যেমন- দারুচিনি, তেজপাতা, আলুবোখারা, গোলমরিচ, জুম মরিচ, ধনিয়া, বিলাতি ধনিয়া ইত্যাদি চাষাবাদ করে দেশের চাহিদা পূরণ করা যাবে। এসব ফসলের আবাদের ফলে কৃষকরা লাভবান হবেন এবং তাদের আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন হবে। তিন পার্বত্য জেলার প্রত্যন্ত এলাকায় উচ্চমূল্যের মসলা চাষে স্থানীয় কৃষকদের আগ্রহ বাড়ছে। এ এলাকার জমি মসলা জাতীয় ফসল ও ফলের বাগানের জন্য অত্যন্ত উপযোগী। এরই ধারাবাহিকতায় পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড পার্বত্য এলাকার প্রান্তিক কৃষকদের জন্য গ্রহণ করেছে উচ্চমূল্যের মসলা চাষ পাইলট প্রকল্প।

বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, একসময় পাহাড়ে মসলা বলতে শুধু আদা, হলুদের চাষকে বোঝাত। কিন্তু এখন পাহাড়ের কৃষকরা জুম চাষের পাশাপাশি বিভিন্ন রকমের মসলা চাষের দিকে উদ্বুদ্ধ হচ্ছেন। অনেক কৃষক মনে করছেন, এই মসলা চাষের মাধ্যমে তারা অধিক লাভবান হবেন। পরিবেশবিদরা বলছেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম এলাকার আবহাওয়া বিবেচনায় এখানে উদ্যান ও মসলা জাতীয় ফসল আবাদের অনেক সুযোগ রয়েছে। দরিদ্র এবং প্রান্তিক কৃষকদের উদ্যান ও মসলা জাতীয় ফসল আবাদে কৃষকদের সম্পৃক্ত করা সবচেয়ে ভালো উদ্যোগ। সূত্রে জানা গেছে, ‘পার্বত্য চট্টগ্রামের প্রত্যন্ত এলাকায় উচ্চমূল্যের মসলা চাষ’ একটি পাইলট প্রকল্প। এটি ২০১৮ সালের জুন থেকে ২০২২ সালের জুন পর্যন্ত চারবছর মেয়াদ। প্রকল্পের মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ৩৪ কোটি ৮৭ লাখ ২৫ হাজার টাকা। পার্বত্য চট্টগ্রামের বিভিন্ন এলাকায় উন্নত জাতের মসলা যেমন- দারুচিনি, তেজপাতা, আলুবোখারা, গোলমরিচ, জুম মরিচ, ধনিয়া, বিলাতি ধনিয়া ইত্যাদি চাষাবাদ করে দেশের চাহিদা পূরণ করা যাবে। এসব ফসলের আবাদের ফলে কৃষকরা লাভবান হবেন এবং তাদের আর্থ-সামাজিক অবস্থার উন্নয়ন হবে।

পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ড জানিয়েছে, এ প্রকল্পের আওতায় তিন পার্বত্য জেলায় ২ হাজার ৬০০ জন কৃষককে মসলা চাষের সাথে সম্পৃক্ত করা হয়েছে। কৃষকদের বিনামূল্যে আলুবোখরা, দারুচিনি, তেজপাতা, গোলমরিচ ইত্যাদি মসলার চারা-কলমও প্রদান করা হয়। পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের ‘পার্বত্য চট্টগ্রামের প্রত্যন্ত এলাকায় উচ্চমূল্যের মসলা চাষ’ প্রকল্প অফিস জানিয়েছে, কৃষকদের প্রয়োজনীয় কৃষি যন্ত্রপাতি, সার ও রোপণ কৌশল সম্পর্কে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। স্বল্প সময়ে আয়ের জন্য কৃষকদের সাথী ফসল হিসেবে পেঁপে চারা, উন্নত জাতের পেয়ারা ও জলপাই চারাও দেওয়া হয়েছে।