মাঠজুড়ে পাকা ধানের ঘ্রাণ চলছে সোনালি ধান কাটার উৎসব

মাঠজুড়ে পাকা ধানের ঘ্রাণ চলছে সোনালি ধান কাটার উৎসব
মৃদু বাতাসে পাকা ধানের শীষের দোলা বিলের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে দেশের গ্রামীণ জনপদে এখন মাঠে মাঠে আমন মৌসুমের নানা জাতের সোনালি ধান। হাকালুকির বাতাসে পাকা ধানের ম-ম ঘ্রাণ ছড়িয়ে পড়েছে , উৎসবের আবহে কৃষকের সঙ্গে ধান কাটায় যোগ দিয়েছেন পরিবারের অন্য সদস্যরাও। ফসলের মাঠে চলছে আমন ধান কাটার উৎসব। ফলন ভালো হওয়ায় চাষিদের পরিবারে বইছে খুশির জোয়ার। এরই মধ্যে ধান কাটা শুরু হয়েছে। ডিসেম্বরের মধ্যে ধান কাটা শেষ হবে। ফলন ভালো হওয়ায় আনন্দে রয়েছেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সংশ্লিষ্টরা। আমন ধান সংগ্রহে জোরদার করা হয়েছে অভ্যন্তরীণ আমন সংগ্রহ অভিযানও। সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা নিয়ে সময়মতো আমন ধান সংগ্রহ অভিযান সফল করতে খাদ্য বিভাগের মাঠ কর্মকর্তাদের খাদ্য মন্ত্রণালয় থেকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর বলেন, লক্ষ্যমাত্রার চেয়েও এবার উৎপাদন বেশি হবে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় আমনের উৎপাদন ভালো হয়েছে। এরই মধ্যে এক-তৃতীয়ংশ জমির ধান কাটা শেষ হয়ে গেছে। এবার লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে আমানের আবাদ বেশি হয়েছে। আশা করছি উৎপাদনের যে লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে, উৎপাদনও তার চেয়ে বেশি হবে। তিনি বলেন, এবার আমন চাষে ১ লাখ ৭৫ হাজার কৃষককে প্রণোদনা দেওয়া হয়েছিল। নতুন জাতে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে। হাইব্রিড আবাদে প্রণোদনা দেওয়া হয়েছে। তাই এবার ফসলের উৎপাদন ভালো হচ্ছে। লক্ষ্যমাত্রা ছিল ৫৫ লাখ ৭৭ হাজার হেক্টর। আবাদ হয়েছে ৫৬ লাখ ২০ হাজার হেক্টর জমিতে। সব মিলিয়ে বলব কৃষি বিভাগের সুষ্ঠু তদারকি এবং আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় ও সময়মতো রোদ-বৃষ্টি হওয়াতে এবার আমন ফসলে পোকার আক্রমণ এবং রোগবালাইয়ের প্রকোপ ছিল না। ফলে সার্বিকভাবে আমন ধানের ফলন ভালো হয়েছে।

সংশ্লিষ্টরা বলেন, এখন পর্যন্ত ৩৩ শতাংশ জমির ধান কাটা শেষ হয়েছে। চলছে আমনের মাড়াই কার্যক্রম। এবার আমনের উৎপাদন বেশ ভালো হয়েছে। ধানের দামও ভালো পাওয়া যাচ্ছে। হাজার টাকা মণে ধান বিক্রি হচ্ছে। দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের কৃষকের সঙ্গে কথা বলে এমন তথ্য পাওয়া গেছে। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরও এবার লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে আমনের উৎপাদন বেশি হওয়ার প্রত্যাশা করছে।