নানাভাবে ভাঙতে ও গড়তে চান মধুমিতা

ভারতের কলকাতায় অভিনেত্রীদের মধ্যে ব্যাপক জনপ্রিয় মুখ মধুমিতা সরকার। ‘বোঝে না সে বোঝে না’, ‘কেয়ার করি না’, ‘কুসুমদোলা’ সিরিয়ালগুলোর মাধ্যমে তিনি এই জনপ্রিয়তা অর্জন করেন। সেটাকে পুঁজি করে সম্প্রতি তার অভিষেক হয়েছে চলচ্চিত্র জগতে।অভিনয়ে নিজেকে নানাভাবে ভাঙতে ও গড়তে চান মধুমিতা। তার ভেতরে যে দক্ষতা আছে, সেটার আভাস দেওয়ার জন্য ইনস্টাগ্রামকে ব্যবহার করেন তিনি। অভিনেত্রী বলেন, ইনস্টাগ্রাম আমি ফ্লার্ট করার জন্য ব্যবহার করি না। অন্য আট-দশ জনকে দেখানোর জন্যও না। আমি পরিচালকদের জন্য ইনস্টাগ্রাম ব্যবহার করি। তারা যাতে চরিত্র নির্বাচনের সময় তারা আমার বৈচিত্র্য মাথায় রাখতে পারেন।

একটা সময় বাঙালি এই তরুণী সাদাসিধে জীবন যাপন করলেও এখন তিনি বেশ পরিণত। খোলামেলা পোশাকে নিজেকে সাহসী রূপে উপস্থাপন করতে বিন্দুমাত্র কার্পণ্য করেন না। তার ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে ঢুঁ মারলেই সেটা টের পাওয়া যায়।

মধুমিতার খোলামেলা ছবি, ভিডিও নিয়ে সমালোচনা কম হয় না। কিন্তু এসব নিয়ে কোনো মাথাব্যথা নেই তার। তিনি বলেন, নিন্দুকেরা সমালোচনা করবেই। ওসব ভাবতে গেলে কাজ করতে পারব না।

ইনস্টাগ্রামে স্বল্প পোশাকে, আকর্ষণীয় ছবি দেওয়ার কারণ কী? সে বিষয়টিও পরিষ্কার করেন মধুমিতা। তার ভাষ্য, নিজেকে সেই ধারাবাহিকের ‘ইমন’ আর ‘পাখি’ করে রাখতে চাইনি। আমি যে নাটকের আগে মডেলিং করেছি, তা তো মানুষ জানতই না। নিজেকে সব চরিত্রে যে আমি ভাঙতে পারি, সব ধরনের পোশাকে যে আমাকে মানায়, এসব আমি নিজেই দেখতে চেয়েছিলাম। তাই আমার ইনস্টাগ্রাম।

সম্প্রতি মধুমিতা সরকার সম্প্রতি কাজ করেছেন ‘উত্তরন’ নামের একটি ওয়েব সিরিজে। এতে তার বিপরীতে আছেন রাজদ্বীপ গুপ্তা। সিরিজটি শিগগিরই প্রচার হবে হইচই-তে।