চট্টগ্রামে দ্রুত করোনা ভাইরাস ছড়াচ্ছে

চট্টগ্রামে দ্রুত করোনা ভাইরাস ছড়াচ্ছে

দেশে ১২টি জেলা করোনার উচ্চ ঝুঁকিতে রয়েছে। তার মধ্যে চট্টগ্রামের অবস্থান আগে।হিসেবে দেখা গেছে, চট্টগ্রামের প্রশাসন, সাধারণ মানুষ, বাসচালক, বিক্রেতা থেকে শুরু করে শ্রমিক পর্যন্ত সবাই করোনা নিয়ে উদাসীন। উদাসীনতার ফল হিসেবে একদিনে চট্টগ্রামে করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে ১ হাজার ৪৫৫ ছুঁই ছুঁই। চট্টগ্রামে করোনা ভাইরাসে গেলো ২৪ ঘণ্টায় দুইজনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় ৪ হাজার ২৬৫টি নমুনা পরীক্ষা করে ১ হাজার ৪৫৫ জনের করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছেন। সংক্রমণের হার ৩৪ দশমিক ১৩ শতাংশ।

বুধবার (২৬ জানুয়ারি) সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে প্রকাশিত প্রতিবেদন এ তথ্য জানা গেছে।

প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, চট্টগ্রামে অ্যান্টিজেন টেস্ট সহ ১৪টি ল্যাবে নমুনা পরীক্ষা করা হয়।

নতুন আক্রান্ত ১ হাজার ৬০ জন মহানগর এলাকার ও ৩৯৫ জন বিভিন্ন উপজেলার বাসিন্দা। এখন পর্যন্ত চট্টগ্রামে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১ লাখ ১৪ হাজার ৯১৫ জন।

এর মধ্যে মহানগর এলাকায় ৮৩ হাজার ৮৪০ জন এবং উপজেলায় ৩১ হাজার ৭৫ জন। এছাড়া মোট মৃত্যুবরণ করা ১ হাজার ৩৪৮ জনের মধ্যে ৭২৯ জন মহানগর এবং ৬১৯ জন বিভিন্ন উপজেলার বাসিন্দা।২০২০ সালের মার্চে বাংলাদেশে প্রথম করোনার প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়। চট্টগ্রামে ২০২০ সালের ৩ এপ্রিল প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। একই বছরের ৯ এপ্রিল করোনায় চট্টগ্রামে প্রথম কারও মৃত্যু হয়।বুধবার নগরীর জনবহুল কয়েকটি এলাকায় ঘুরে দেখা যায়, নগরীর চকবাজার আর আন্দরকিল্লা হচ্ছে বইয়ের ও টেরিবাজর কাপড়ের দোকান ভিড়ে সেসব এলাকায় হাঁটাও দায়। সেখানে ৯০ শতাংশ দোকানির মুখে মাস্ক ছিল না। আন্দরকিল্লা দোকানের পাশেই চট্টগ্রাম জেনারেল অধিকাংশ মানুষের মাঝে কোনো স্বাস্থ্যবিধি মানার কোনো গরজ তো নেই, মাস্ক পরার কথা বলতেই তারা নানা অজুহাত দাঁড় করিয়েছেন।