কর্ণাটকে হিজাব নিয়ে উত্তেজনা, বন্ধ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান

কর্ণাটকে হিজাব নিয়ে উত্তেজনা, বন্ধ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান
ভারতের কর্ণাটক রাজ্যে মুসলিম নারী শিক্ষার্থীদের হিজাব পরা নিয়ে চলমান বিতর্কে উত্তেজনা তীব্র হয়ে ওঠায় কর্তৃপক্ষ তিন দিনের জন্য সব হাই স্কুল ও কলেজ বন্ধ ঘোষণা করেছে। গত মাসে রাজ্যটির উডুপির সরকারি গার্লস পিউ কলেজের ছয় শিক্ষার্থী অভিযোগ করে, হিজাব পরার জন্য ক্লাসে নিষিদ্ধ করা হয়েছে

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানায়, বুধবার (৯ ফেব্রুয়ারি) থেকে তিন দিনের জন্য বন্ধ থাকবে রাজ্যের স্কুল ও কলেজগুলো।

কর্ণাটকের উডুপি ও চিক্কামাগালুরুতে ক্লাসে মুসলিম নারী শিক্ষার্থীদের হিজাব পরা নিয়ে আপত্তি তোলে হিন্দু ডানপন্থি গোষ্ঠীগুলো।

শুক্রবার ও শনিবার বিজেপি ও আরএসএস সমর্থিত কয়েকশ’ শিক্ষার্থী হিন্দুত্ববাদীদের প্রতীক গেরুয়া রঙের উত্তরীয় পরে তাদের কলেজে মিছিল করে। এবং হিজাবের বিরুদ্ধে শ্লোগান দেয়। মঙ্গলবার ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের মধ্যে পাথর ছোড়াছুড়ির ঘটনাও ঘটে।

এদিকে একটি কলেজের একদল শিক্ষার্থী তাদের কলেজে ভারতের জাতীয় পতাকা নামিয়ে সেখানে গেরুয়া পতাকা উড়িয়ে দেয়। সামাজিক মাধ্যমে সে ভিডিও ছড়িয়ে পড়লে পরিস্থিতি আরও জটিল হয়ে ওঠে।

অন্যদিকে মঙ্গলবার ভাইরাল হওয়া এক ভিডিওতে দেখা যায়, মান্ডিয়ায় গেরুয়া উত্তরীয় পরা একদল ছাত্র হিজাব পরা এক মুসলিম ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করার চেষ্টা করে। তারা বারবার ‘জয় শ্রী রাম’ শ্লোগান দিলে ওই ছাত্রীকে ঘিরে ধরার চেষ্টা করে। এ সময় পাল্টা প্রতিবাদ হিসেবে ওই ছাত্রী ‘আল্লাহু আকবর’ বলেন।এমন পরিস্থিতিতে কর্ণাটকের বিজেপি দলীয় মুখ্যমন্ত্রী বাসবরাজ বোম্মাই বুধবার থেকে তিন দিনের জন্য স্কুল-কলেজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন।